স্বাধীনতা ও আমার চাওয়া

স্বাধীনতা ও আমার চাওয়া

স্বাধীনতা ও আমার চাওয়া
নব তারা
শুরু হল স্বাধীনতার মাস । এ মাসেই দেশের মানুষ দলমত নির্বিশেষে স্বাধীনতা লাভের অদম্য বাসনা নিয়ে দখলদার পশ্চিম পাকিস্তানিদের সীমাহীন ও অব্যাহত শোষণ-বঞ্চনার বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামের সূচনা করেছিল। তাই এ মাসটি জাতির দেশপ্রেম, অবিরাম সংগ্রাম এবং সংহত শক্তির প্রতীক ।
১৯৭১ সালের এই মাসেই পাকিস্তান থেকে আলাদা হয়ে একটি স্বতন্ত্র, স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বাংলাদেশের মানুষ একটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিল এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়েছিল।
ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়, স্বাধিকার আন্দোলনের মুখরতায় টালমাটাল ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ তারিখটি ছিল পবিত্র শুক্রবার। সেদিন সুউচ্চ মসজিদের মিনার থেকে ভেসে আসা মুয়াজ্জিনের আজানের ধ্বনি ও শাশ্বত সূর্যোদয়ের মধ্যে নিহিত ছিল অন্যরকম দ্যোতনা।
লক্ষ প্রান আর হাজারো মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত এ স্বাধীনতায় সকলের চাওয়া ছিল : সাধারন জনগোষ্টির মানবিক মর্যাদার নিশ্চয়তা , গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, মানবাধিকার, বাকস্বাধীনতা, চলাফেরার স্বাধীনতা, সমাবেশের স্বাধীনতা, সংগঠনের স্বাধীনতা, চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা, পেশা ও বৃত্তির স্বাধীনতা, মতামতের স্বাধীনতা, আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার এবং চাকরি-বাকরিসহ সরকারি সুযোগ-সুবিধার সমান ও ন্যায্য অধিকার প্রাপ্তির অবাধ ও নিরপেক্ষ পদ্ধতিতে সরকার নির্বাচনের অধিকার ।
কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে সত্য স্বাধীনতার ৪৪ বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পরেও যেন আমরা উপরোক্ত মৌলিক অধিকারগুলো থেকে বঞ্চিত ।তবে আমরা আজ যার শিমু তারা চাই স্বাধীনতার বাস্তব ফল । চাই একটি সোনার বাংলা । ঙেখানে আমরা প্রাণ ভরে নি:শ্বাস নিতে পারব , যেখানে আমাদের বেড়ে ওঠাতে কোন প্রতিবন্ধকতা থাকবে না । যেখানে উগ্রবাদী কোন দল বা মতের কেউ থাকবে না । শুধু আমরাই থাকব যারা এদেশকে মায়ের মতন মনে করি ।

মন্তব্য করুন